শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১৩ই শাবান ১৪৪৫ হিজরি

হাটহাজারীতে সহ কর্মীর মুক্তির দাবীতে পরিবহন শ্রমিকদের নৈরাজ্য,ভোগান্তিতে যাত্রীরা

মোজাফফর হোসাইন সিকদার:
চট্টগ্রাম – খাগড়াছড়ি রোডের বাস চালক দিদারুল আলমের মুক্তির দাবিতে দুই পার্বত্য জেলা ও চট্টগ্রাম উত্তর জেলা বাস- মিনি বাস শ্রমিক ফেডারেশনের ডাকে কর্ম বিরতি পালন করছেন পরিবহন শ্রমিকরা। ফলে
আটকা পড়েছে শত শত যানবাহন। চরম ভোগান্তিতে পড়েছে হাজার হাজার যাত্রী।

বেলা ১২ টার দিকে কিছু গাড়ী ছেড়ে দেওয়া হলেও পরে আটকে দেওয়া হয় সব ধরনের যানবাহন। বেলা সাড়ে ১২ দিকে বাস স্টেশন চত্বরে আসেন হাটহাজারী মডেল থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বেলাল উদ্দীন জাহাঙ্গীর। তিনি এসে আটকা পড়া গাড়ি গুলো ছেড়ে দিতে চাইলে সেখানে হট্টগোলের সৃষ্টি হয়। পরে সংগঠনের আঞ্চলিক শাখার সাধারন সম্পাদক ও অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত হয়ে শ্রমিকদর শান্ত করে জরুরী (প্রাইভেট গাড়ী, বিদেশ যাত্রী বহনকারী গাড়ী,বিবাহ ও সামাজিক অনুষ্ঠানের গাড়ী) পরিবহন গুলো স্বাভাবিক করে দিতে দেখা যায়।
এ্যাম্বুলেন্স, ফায়ার সার্ভিস, সরকারী কাজে ব্যাবহারিত গাড়ী গুলো আওতামুক্ত ছিলো বলে জানান শ্রমিকরা।
দূর্ভোগে পড়া একাধিক যাত্রী ক্ষুদ্ধ হয়ে এই প্রতিবেদককে বলেন আমরা সাধারন মানুষরা তাঁদের কাছে বন্দী হয়ে আছি। তাঁরা অন্যায় করবে কিন্তু আইন মানবেন না এটা কেমন কথা আইন কি শুধু আমাদের জন্য ? কোন ধরনের পূর্বের ঘোষনা ছাড়া হঠাৎ করে গাড়ী বন্ধ রাখা মানে যাত্রীদের মুখ বন্ধ রাখার নতুন আর এক কৌশল বলে উল্লেখ করেন তিনি।

এই বিষয়ে কথা হয় সংগঠনের উত্তর জেলা শাখার সাধারন সম্পাদক মোঃহারুনের সাথে, তিনি বলেন, আমাদের শ্রমিক ভাই দিদারের মুক্তির দাবীতে আমরা কর্ম বিরতির মধ্যে থেকে শান্তি পুর্ণভাবে আন্দোলন করছি। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন আমাদের সাথে জেলা প্রসাশক মহোদয়ের সাথে কথা চলছে দাবী মানা হলেই আমরা আমাদের কর্মে ফিরে যাবো। এবং যানবাহন স্বাভাবিকভাবে চলাচলের ব্যবস্থা করে দেব।

উল্লেখ্য যে, গতকাল ২৪ অক্টোবর বাস চালক দিদারুল আলমকে ( বি আর টি এ) ‘র ভ্রাম্যমান আদালত কর্তৃক তিন মাসের কারাদন্ড দেওয়া হয়।

Facebook
Twitter
LinkedIn
Telegram
WhatsApp
Email
Print