শুক্রবার, ১৪ই জুন ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শুক্রবার, ১৪ই জুন ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ শুক্রবার, ১৪ই জুন ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩১শে জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৭ই জিলহজ ১৪৪৫ হিজরি

অবশেষে ঐক্যফ্রন্টে যোগ দিলেন কাদের সিদ্দিকী

প্রভাতী ডেস্ক: ড.কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে যোগদানের ঘোষণা দিলেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের প্রধান কাদের সিদ্দিকী।
৫ নভেম্বর সংবাদ সম্মেলনে কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘যে মুহূর্তে সরকার সংলাপে বসেছেন, সেই মুহূর্ত থেকে দেশের অবস্থা সামান্য হলেও উন্নতি হয়েছে। যেখানে আওয়ামী লীগ তাদের ছাড়া আর কাউকে দেখতো না, আজকে সংযত ভাষায় তারা কথা বলতে শুরু করেছে। আমি সেটাই চেয়েছিলাম। পোড়া মাংসের গন্ধ গণভবনে বসে শুঁকতে শিখেছেন, এ জন্য তাকে আমি ধন্যবাদ জানাই। অনেক দিন থেকে কথা হচ্ছিল, আমরা বদরুদ্দোজা চৌধুরী ও ড. কামাল হোসেনকে একসাথে নিয়ে একটা জাতীয় ঐক্য সৃষ্টি করার চেষ্টা করেছিলাম।’

তিনি আরও বলেন, ‘গত ৩ নভেম্বর ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউটে জেলহত্যা দিবসে আমাদের একটি আলোচনা সভা ছিল। সেই সভাতেও আমি বদরুদ্দোজা চৌধুরীকে আহ্বান করেছিলাম। তিনি আসতে রাজি হয়েছিলেন। কিন্তু যখন তিনি শুনলেন ড. কামাল হোসেন প্রধান অতিথি হবেন তাই তিনি আসেননি। এজন্য আমি দুঃখ প্রকাশ করি না। ঠিক আছে। ৩ নভেম্বর আসেননি, ডিসেম্বরে নিশ্চয়ই আসবেন। সেই প্রত্যাশায় আমরা রইলাম। তবে তার ইচ্ছা যদি হয় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাই প্রধানমন্ত্রী থাকুন, তার সন্তান মাহী বি চৌধুরী বাংলাদেশের জাতীয় সংসদে আসুক তাহলে তাকে বাংলাদেশের মানুষের কোনো প্রয়োজন নাই ।’

ঐক্যফ্রন্টে যোগ দেওয়ার ঘোষণা দিয়ে বঙ্গবীর বলেন, ‘বাংলাদেশের মানুষের প্রয়োজন মুক্তি। আমরা গ্রহণযোগ্য একটি নির্বাচন চাই, বিশ্বাসযোগ্য একটি নির্বাচন চাই, মানুষের ভোটের নির্বাচন চাই। তাই আনন্দের সাথে আমি আমার দলের সিদ্ধান্ত ঘোষণা করছি যে আজ ৫ নভেম্বর, এই মুহূর্ত থেকে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে আমরা জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে যোগদান করলাম। দেশবাসীর কাছে আমার প্রার্থনা, আমাদের প্রার্থনা যাতে তারা দেশকে মুক্ত করার জন্য ড. কামাল হোসেনের পাশে দাঁড়িয়ে আমাদেরকে সাহায্য করেন, সহায়তা করেন। আল্লাহ আমাদেরকে সহায় করুন।’

এর আগে গত ৩১ অক্টোবর কাদের সিদ্দিকী বলেছিলেন, ‘আমি জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে থাকব কি না, সেটা ৩ নভেম্বর জানাবো।’ তবে সিদ্ধান্ত জানাতে গত শনিবার বিকেলে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেনের কাছে একদিনের সময় চেয়ে নেন কাদের সিদ্দিকী। বঙ্গবীর বলেন, ‘সুলতান মোহাম্মদ মুনসুর আমাকে যোগ দিতে বলেছেন। আমি যদি যোগ দেই, তাহলে মনপ্রাণ দিয়ে কাজ করব। আর যদি আপনাদের সঙ্গে নাও থাকতে পারি, তাও জানিয়ে দেব।’

এ অবস্থায় ওইদিন রাত ৯টার দিকে রাজধানীর মোহাম্মপুর এলাকায় কাদের সিদ্দিকীর বাসভবনে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমানের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল দেড় ঘণ্টার বৈঠক করেন। বৈঠকে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার, সুষ্ঠু, অবাধ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের স্বার্থে এবং সুশাসন প্রতিষ্ঠায় কাদের সিদ্দিকীকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে যোগদান করার জন্য অনুরোধ করেন বিএনপি নেতারা। শেষ পর্যন্ত আজ সংবাদ সম্মেলন করে ঐক্যফ্রন্টে যোগ দেওয়ার ঘোষণা দিলেন কাদের সিদ্দিকী।

Facebook
Twitter
LinkedIn
Telegram
WhatsApp
Email
Print