সোমবার, ২৬শে ফেব্রুয়ারি ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

সোমবার, ২৬শে ফেব্রুয়ারি ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ সোমবার, ২৬শে ফেব্রুয়ারি ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১৩ই ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১৫ই শাবান ১৪৪৫ হিজরি

মায়ের পাশে চির নিদ্রায় শায়িত হলেন আইয়ুব বাচ্চু

স্টাফ রিপোর্টার:”একদিন চলে যাব দূরে বহুদূরে/আর বেশী কাঁদালে উড়াল দিব আকাশে” আর কখনো এই ধরণের প্রিয় গান নিয়ে মঞ্চে এসে তরুনদের মাতিয়ে তুলতে পারবেন না ব্যান্ড সংগীতের কিংবদন্তি শিল্পী আইয়ুব বাচ্চু।চট্টগ্রামের জমিয়তুল ফালাহ মসজিদ ময়দানে জানাযা শেষে ব্যান্ড সংগীতের কিংবদন্তি শিল্পী আইয়ুব বাচ্চুকে চট্টগ্রামের চৈতন্য গলিস্থ গোরস্থানে মায়ের কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত করা হয়েছে।আজ শনিবার বিকাল ৫টার দিকে তাঁকে সমাহিত করা হয়।

এর আগে চট্টগ্রামে লাখো মানুষের অংশগ্রহণে কিংবদন্তি ব্যান্ড সংগীতশিল্পী, গিটার সম্রাটআইয়ুব বাচ্চুর চতুর্থ জানাজা সম্পন্ন হয়।আছরের নামাজের পর জানাজায় অংশ নিতে সর্বস্তরের মানুষের ঢল নামে জমিয়াতুল ফালাহ মসজিদ মাঠে। জানাযায় বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ এবং সাংস্কৃতিক কর্মীদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মত।

বেলা ৩টা থেকে মসজিদ প্রাঙ্গণে রাখা আইয়ুব বাচ্চুর মরদেহে ফুল দিয়ে শেষ শ্রদ্ধা জানান তাঁর ভক্ত,সাধারণ মানুষ, রাজনীতিবিদ, শিল্পী, সাহিত্যিকসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ।

জানাযায় অংশ নেওয়া মানুষের ঢল এতো বেশী ছিল যে এক পর্যায়ে মসজিদের মাঠ ছাপিয়ে পাশের সড়কে চলে যায় । যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায় ওয়াসা-আলমাস মোড় পর্যন্ত।

আজ সকাল ১০ টায় ঢাকা থেকে একটি বিমানযোগে আইয়ুব বাচ্চুর মরদেহ চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছায়। সেখান থেকে মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় পূর্ব মাদারবাড়ি আইয়ুব বাচ্চুর নানার বাড়িতে। সেখানেও স্বজন -ভক্তরা ভিড় করেন। সেখান থেকে ৩টায় জানাজার জন্য মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় জমিয়াতুল ফালাহ মসজিদে। জানাজা শেষে নগরের চৈতন্য গলি কবরস্থানে মায়ের পাশে তাঁকে সমাহিত করা হয়।

এদিকে আইয়ুব বাচ্চুর নামে চট্টগ্রামে একটি গুরুত্বপূর্ণ সড়কের নামকরণ করা হবে এবং আগামীকাল রবিববার সাধারণ সভায় এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানান সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। তিনি বলেন, একটি সড়ক তাঁর নামে করা হবে। এছাড়া মুসলিম ইনস্টিটিউট মিলনায়তনের সংস্কার কাজ শেষে মুসলিম শব্দটি অক্ষুণ্ন রেখে পুরো হল অথবা এর কোনো একটি অংশ আইয়ুব বাচ্চুর নামে করার প্রস্তাবও সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে বলে জানান মেয়র।

গত বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টার দিকে এই জনপ্রিয় শিল্পী হৃদরোগ জনিত কারণে মৃত্যুবরণ করেন।

Facebook
Twitter
LinkedIn
Telegram
WhatsApp
Email
Print