রবিবার, ১৬ই জুন ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

রবিবার, ১৬ই জুন ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ রবিবার, ১৬ই জুন ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ২রা আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৯ই জিলহজ ১৪৪৫ হিজরি

পণ্য ও সেবা কিনে ক্ষতিগ্রস্থ হলে কোথায়, কিভাবে এবং কখন অভিযোগ দায়ের করবেন?

কোন ব্যক্তি যদি কোন পণ্য বা সেবা ক্রয় করে ক্ষতিগ্রস্ত হন তাহলে তিনি উক্ত প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তির বিরুদ্ধে প্রতিকার চেয়ে সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের নিকট অভিযোগ করতে পারেন।

(ক) যেখানে অভিযোগ দায়ের করা যাবেঃ

#ঢাকা
* মহাপরিচালক,
জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর
বাণিজ্য মন্ত্রণালয়
১ কারওয়ান বাজার (টিসিবি ভবন-৮ম তলা), ঢাকা-১২১৫
ফোনঃ ৮৮-০২-৮১৮৯৪২৫, ৮৮-০২-৮১৮৯০৪৫
ফ্যাক্সঃ +8802 8189426
অভিযোগ কেন্দ্রঃ ০১৭৭৭৭৫৩৬৬৮

#চট্টগ্রাম
* উপ পরিচালক, চট্টগ্রাম বিভাগীয় কার্যালয়, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর, টিসিবি ভবন, বন্দরটিলা, চট্টগ্রাম, ফ্যাক্সঃ +8803 12868989

#রাজশাহী
* উপ পরিচালক, রাজশাহী বিভাগীয় কার্যালয়, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর, শ্রীরামপুর, রাজশাহী, ফ্যাক্সঃ +8807 21772774

#বরিশাল
* উপ পরিচালক, বরিশাল বিভাগীয় কার্যালয়, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর, মহিলা ক্লাব ভবন, বরিশাল, ফ্যাক্সঃ +8804 3162042

#খুলনা
* উপ পরিচালক, খুলনা বিভাগীয় কার্যালয়, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর, টিসিবি ভবন, শিববাড়ী মোড়, খুলনা, ফ্যাক্সঃ +880 41724682

#সিলেট
* উপ পরিচালক, সিলেট বিভাগীয় কার্যালয়, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর, বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়, সিলেট, ফ্যাক্সঃ +8808 21728695

#রংপুর
* উপ পরিচালক, রংপুর বিভাগীয় কার্যালয়, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর, নিউ ইঞ্জিনিয়ারিং পাড়া, রংপুর, ফ্যাক্সঃ +8805 215569192

* প্রত্যেক জেলার জেলা ম্যাজিস্ট্রেট

ই-মেইল: dncrp@yahoo.com
www.dncrp.gov.bd
www.facebook.com/dncrp/

জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর এর Pdf ফরম-
https://goo.gl/ZfZhzK

(খ) অভিযোগ দায়েরের সময়সীমাঃ
* কারণ উদ্ভব হওয়ার ৩০ দিনের মধ্যে অভিযোগ দায়ের করতে হবে।

(গ) যেভাবে অভিযোগ দায়ের করতে হবেঃ
* অভিযোগ অবশ্যই লিখিত হতে হবে।
* ফ্যাক্স, ই-মেইল, ওয়েব সাইট, ইত্যাদি ইলেক্ট্রনিক মাধ্যমে, বা;
* অন্য কোন উপায়ে;
* অভিযোগকারি তাঁর পূর্ণাঙ্গ নাম, পিতা ও মাতার নাম, ঠিকানা, ফোন, ফ্যাক্স ও ই-মেইল নম্বর (যদি থাকে) এবং পেশা উল্লেখ করবেন।
* অভিযোগের সাথে প্রমাণ হিসেবে ভাউচার/ক্রয় রশিদ এবং ক্ষেত্র বিশেষে ক্রয়কৃত পণ্যের নমুনা প্রদান করতে হবে।
* বাজারের কোন পণ্য বা সেবা পণ্যের ব্যাপারে তথ্য প্রদান অভিযোগ হিসেবে গণ্য হবে না। ভোক্তা নিজে ক্ষতিগ্রস্থ হইয়া অভিযোগ দায়ের করতে হবে।

(ঘ) অভিযোগ প্রমাণিত হলে সুবিধা : অভিযোগকারীর অভিযোগ প্রমাণিত হলে যেই আর্থিক জরিমানা আদায় করা হয় তার ২৫% ভুক্তভোগী বা অভিযোগকারী পাবেন।

Facebook
Twitter
LinkedIn
Telegram
WhatsApp
Email
Print