শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১৩ই শাবান ১৪৪৫ হিজরি

পুরো দেশটাই এখন আওয়ামী কারাগার: শাহাদাত

প্রভাতী ডেস্ক : সমগ্র বাংলাদেশের মানুষ আজ আওয়ামী কারাগারে বন্দী উল্লেখ করে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ডাঃ শাহাদাত হোসেন বলেছেন, আওয়ামী ফ্যাসিস্টদের ভয়ে মানুষ আজ তাদের ন্যায্য অধিকার থেকে বঞ্চিত। বাংলাদেশের মানুষের ন্যূনতম নাগরিক ও সাংবিধানিক অধিকারও হরণ করেছে আওয়ামিলীগ সরকার। সরকারের অন্যায় অবিচারের বিরুদ্ধে কথা বললেই তাকে ধরে কারাগারের অন্ধ প্রকোষ্ঠে নিক্ষিপ্ত করা হচ্ছে, তার উপর নেমে আসে অমানবিক সরকারি নির্যাতন। চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রদল সভাপতি গাজী সিরাজ কে বিনা কারণে গ্রেপ্তার করে ৫ মাস কারাগারে আটকে রেখেছিল এই ফ্যাসিস্টরা। প্রথমবার কারামুক্তির পর তাকে আবারো বিনা অপরাধে গ্রেপ্তার করে দীর্ঘ ১ মাস কারাগারে আটকে রাখা হয়। যা সম্পুর্ণ অন্যায় ও অসাংবিধানিক। একজন নাগরিকের ন্যায্য অধিকার হরণের কোন অধিকার এই সরকারের নেই। গাজী সিরাজ একজন পরিচ্ছন্ন ও জনপ্রিয় ছাত্রনেতা। সরকারী অন্যায় অবিচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করার কারণেই তাকে এরূপ ঘৃণ্য ষড়যন্ত্রের শিকার হতে হয়েছে। বাংলাদেশের মানুষ ঠিকই এর জবাব দিবে। এদেশের মুক্তিকামী জনতা অচিরেই আপোষহীন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া কে মুক্ত করে মানুষের সকল অধিকার পুনরায় ফিরিয়ে দিবে। মুক্তিকামী জনতার জনস্রোত ঠেকানোর সামর্থ্য কারো নেই।

সোমবার (৩০ ডিসেম্বর) বিকাল ৩ ঘটিকায় চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি আয়োজিত গণতন্ত্র হত্যা দিবসের বিক্ষোভ সমাবেশের পূর্বে সদ্য কারামুক্ত চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রদল সভাপতি গাজী মোহাম্মদ সিরাজ উল্লাহ কে ফুল দিয়ে বরণ করে নেয়ার প্রাক্কালে তিনি উপরোক্ত কথা বলেন।

মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর বলেন,  আওয়ামী সন্ত্রাসী ও তার দোসরদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ বাংলার জনগণ। জনগণের প্রতিবাদী কন্ঠগুলোকেই আওয়ামিলীগের সবচেয়ে বেশি ভয়। তাইতো তারা গাজী সিরাজের মত একজন পরিচ্ছন্ন ও প্রতিবাদী কন্ঠকে স্তব্ধ করার জন্য ষড়যন্ত্রমূলক ভাবে বারবার অন্যায়ভাবে কারান্তরীন করে রাখছে। আমরা প্রশাসনের এমন ন্যাক্কারজনক কর্মকাণ্ডের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

সদ্য কারামুক্ত মহানগর ছাত্রদল সভাপতি গাজী মোহাম্মদ সিরাজ উল্লাহ বলেন, দেশ ও মানুষের অধিকার আদায়ের জন্য বারবার কারাগারে যেতে রাজি আছি, তবুও এদেশের মানুষের অধিকার আদায়ের সংগ্রাম থেকে পিছু হটার সুযোগ নেই। রক্ত দিয়ে অর্জিত স্বাধীনতা এভাবে আওয়ামিলীগের হাতে ধ্বংস হতে পারে না। আমরা প্রতিবাদ করে যাবো। জনগণের বিজয় সুনিশ্চিত। সকল অন্যায় অবিচারের বিচার একদিন করা হবে।

Facebook
Twitter
LinkedIn
Telegram
WhatsApp
Email
Print