শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১৩ই শাবান ১৪৪৫ হিজরি

গোলমরিচের স্বাস্থ্যগুণ ও যত কথা

সানজিয়া শাবনাম: ‘গোলমরিচ’ – একটি মসলা। এটি কম বেশি সবার ঘরেই থাকে। বিশেষ করে মাংস জাতীয় রান্নার কাজে এটি বেশী ব্যবহার করা হয়।বিশেষজ্ঞদের মতে,রান্নায় গোটা গোলমরিচ ব্যবহার করা ভালো। গোলমরিচে আছে ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, আয়রন, পটাশিয়াম, ভিটামিন এ এবং একটি বিশেষ উপাদান – পিপেরিন। আসুন জেনে নিই গোলমরিচের গুণাগুন।

★শরীরের টক্সিন রিমুভ করতে গোলমরিচ খুব পারদর্শী।
★হজম শক্তি বাড়াতে ও খাবার হজম করতে গোলমরিচ সাহায্য করে।
★গোলমরিচ উচ্চরক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে।
★গোলমরিচ স্কিন ক্যানসার প্রতিরোধক।
★ওজন কমাতে গোলমরিচ সহায়তা করে। অতিরিক্ত ক্যালরি বার্ন করে।
★গ্যাস্ট্রিকের সমস্যায় প্রতিদিন -এক চিমটি জিরা গুড়া, এক চিমটি গোলমরিচ,এক চিমটি বিট লবণ মিশিয়ে খাওয়ার পর সাথে সাথে এক গ্লাস পানি খেলে উপকার পাওয়া যাবে।
★মুখের গন্ধ ও ইনফেকশন দূর করতে গোলমরিচ সিদ্ধ পানি কুসুম গরম করে কুলকুচি করতে পারেন।
★গোলমরিচ খেলে দাঁতের সমস্যাদি অনেকটা কম হয়।
★সিগারেট ছাড়াতে গোলমরিচ সাহায্য করে।
★প্রতিদিন গোলমরিচ ত্বকের বলিরেখা রোধ ও কমাতে সহায়ক।
★গোলমরিচ মস্তিষ্কের জন্য খুব উপকারী।
★গোলমরিচ ডায়রিয়া,কলেরা ও আথ্রাইটিস প্রতিরোধ এবং জয়েন্ট পেইন কমায়।
★অরুচি দূর করতে – ৩ চিমটি গুলমরিচের সাথে অল্প গুড় মিশিয়ে খেতে হবে।
★গোলমরিচ খেলে ভিতর থেকে ব্রণের প্রবণতা কমে।
★গরম দুধের সাথে গোলমরিচ ও চিনি মিশিয়ে খেলে সর্দিকাশি কমে।
★গোলমরিচ এজমা প্রতিরোধক।
★শরীরের বিভিন্ন ইনফেকশন দূর করতে সহায়ক।
★পুরুষদের ফ্যার্টিলিটি বাড়ায়।
★ব্রণে গোলমরিচের তেল ব্যবহার করলে ভালো ফল পাওয়া যায়।

সতর্কতা :
যেকোনো কিছু অতিরিক্ত ভাল নয়। গোলমরিচের ক্ষেত্রে ও ঠিক তাই। অতিরিক্ত গোলমরিচ বিভিন্ন সমস্যা ও মৃত্যুর কারন হতে পারে।
★কখনো গোলমরিচ সরাসরি খাওয়া বা,সরাসরি ব্যবহার করা যাবে না। সরাসরি ত্বকে ব্যবহার করলে ত্বকে জ্বালাপোড়া হয়। এবং সরাসরি খেলে ফুসফুসে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। যদি সরাসরি খাওয়া গোলমরিচ দূর্ঘটনাবশত ফুসফুসে যায় তাহলে মৃত্যু অনেকটা নিশ্চিত তাই গোলমরিচ অতিরিক্ত খাওয়া এবং সরাসরি খাওয়া যাবে না।
★গর্ভাবস্থায় গোলমরিচ খাওয়া থেকে বিরত থাকুন কারন অতিরিক্ত গোলমরিচ এই অবস্থায় খুবই বিপদজনক। একটি গবেষণায় প্রাপ্ত তথ্য অনুসারে ‘অতিরিক্ত গোলমরিচ খেলে গর্ভপাত হয়’ বলে জানা যায়।
★কিডনিজনিত সমস্যা থাকলে গোলমরিচ খাওয়া কখনো ঠিক নয়।
★অতিরিক্ত গোলমরিচ কিডনিতে পাথর সৃষ্টি করে।

মনে রাখতে হবে – গোলমরিচ প্রতিদিন খাবারের সাথে খাওয়া উপকারী কিন্তু ভাল থাকতে চাইলে পরিমানে বেশি খাওয়া যাবে না।
পরবর্তীতে স্বাস্থ্য বিষয়ক টিপস পেতে পেজে লাইক দিয়ে সাথেই থাকুন।

Facebook
Twitter
LinkedIn
Telegram
WhatsApp
Email
Print